জাতীয়

পি কে হালদারের পাচার করা অর্থ ফেরত আনা হবে

পি কে হালদারকে দেশে ফিরিয়ে আনামাত্র বিচার শুরু হবে বলে জানিয়েছেন অ্যাটর্নি জেনারেল এ এম আমিন উদ্দিন। এছাড়া ভা’রতে তার পাচার করা অর্থ ফেরত আনা হবে বলে জানান অ্যাটর্নি জেনারেল।রোববার (১৫ মে) দুপুর ১২টার দিকে নিজ কার্যালয়ে সাংবাদিকদের এ তথ্য জানান তিনি।

ভা’রতে পাচার হওয়া টাকার বিষয়ে সাংবাদিকদের প্রশ্নের জবাবে অ্যাটর্নি জেনারেল বলেন, ‘পি কে হালদারের পাচার করা টাকা’টা আমাদের। ভা’রতের সঙ্গে আমাদের চুক্তি আছে। এছাড়াও একটা চুক্তি আছে এমএলএফ। এর মাধ্যমে আম’রা টাকা’টা ফেরত আনার চেষ্টা করব। এর আগে বাংলাদেশে শুধু একবারই টাকা এসেছিল। আরাফাত রহমান কোকোর টাকা, যেটা সিঙ্গাপুরে ছিল। পি কে হালদারের টাকা’টা যেহেতু আ’ট’কানো গেছে, আশা করি দ্রুতই এ টাকা ফেরত আনতে পারব।’

আরেক প্রশ্নের জবাবে এ এম আমিন উদ্দিন বলেন, ‘পি কে হালদার দেশে ফেরত আসুক না-আসুক সেটা বিষয় নয়, মা’ম’লার বিচার কিন্তু স্বাভাবিক নিয়মে শুরু হয়ে গেছে। মা’ম’লা হওয়ার সঙ্গে সঙ্গে বিচার কার্যক্রমের একটা ধাপ ত’দ’ন্ত পর্যায়ে আছে। এখন তাকে নিয়ে আসা হলে বিচারের সম্মুখীন করা হবে আর আনা না হলেও বিচার কার্যক্রম অব্যাহত থাকবে। যখন তাকে আনা হবে, তখন বিচারে যে রায় হবে, সেটা কার্যকর করা হবে।’

বাংলাদেশ সরকারের দেওয়া তথ্যেই ভা’রতে পি কে হালদার গ্রে’প্তা’র হয়েছেন বলে জানান এ এম আমিন উদ্দিন। বলেন, এটা একটা বড় সাফল্য।

দুদিনের অ’ভিযানে শনিবার (১৪ মে) প্রশান্ত কুমা’র (পি কে) হালদার ধ’রা পড়েন ভা’রতের গোয়েন্দা সংস্থা এনফোর্সমেন্ট ডিরেক্টরেটের (ইডি) ফাঁদে। এ সময় পি কে হালদারের স্ত্রী’ ও ভাই প্রা’ণেশ হালদারসহ ছয়জনকে গ্রে’প্তা’র করা হয়। রোববার (১৫ মে) বারাসাতের আ’দা’লতে তোলা হলে ত’দ’ন্তের স্বার্থে তাদের ১৭ মে পর্যন্ত ইডি হেফাজতে নেওয়ার নির্দেশ দেন বিচারক।

২০১৯ সালের ২২ অক্টেবর রাত পর্যন্ত দেশেই ছিলেন প্রশান্ত কুমা’র হালদার। ২৩ অক্টোবর সকাল ১০টা ৩০ মিনিটে নিষেধাজ্ঞা দিয়ে দু’র্নী’তি দমন কমিশন (দুদক) চিঠি দেয় ইমিগ্রেশনকে। দুপুর ২টা ৪৩ মিনিটে হোয়াটসঅ্যাপে আবারও তার বিদেশে যাওয়া ঠেকাতে বলে দুদক।

দুদক এবং ইমিগ্রেশন বিভাগ যখন চিঠি চালাচালি করছে তখনো সীমান্ত পাড়ি দেননি পি কে হালদার। আ’দা’লতে জমা দেওয়া ইমিগ্রেশন পু’লিশের তথ্য বলছে, দুদকের আনুষ্ঠানিক চিঠি পাওয়ার দুই ঘণ্টা আগে যশোরের বেলাপোল সীমান্ত দিয়ে দেশ ছাড়েন পি কে হালদার।

Back to top button