জাতীয়

পি কে হালদারকে দ্রুত ফিরিয়ে আনার ব্যাপারে যা বললেন পররাষ্ট্রমন্ত্রী

বাংলাদেশের আর্থিক খাতের শীর্ষ জালিয়াত প্রশান্ত কুমা’র হালদার ওরফে পিকে হালদারকে এখনই ফিরে পাওয়ার আশা করছেন না পররাষ্ট্রমন্ত্রী এ কে আব্দুল মোমেন।ভা’রতে বিচার শেষে বাংলাদেশের এই আ’সা’মিকে ফেরত পাওয়া যেতে পারে বলে সোমবার ঢাকায় এক অনুষ্ঠান শেষে সাংবাদিকদের জানিয়েছেন তিনি।

ভা’রতের সঙ্গে আ’সা’মি প্রত্যর্পণ চুক্তির আওতায় পি কে হালদারকে পাওয়ার যে আশা করা হচ্ছে, সে বিষয়ে সাংবাদিকরা জানতে চাইলে পররাষ্ট্রমন্ত্রী বলেন, আমাদের সেট প্রসেডিওর আছে, এসব ক্ষেত্রে আমাদের একটি নীতি আছে। সেই অনুযায়ী আম’রা কাজ করব। প্রথমে ভা’রত সরকার আমাদের জানাবে, এই লোক গ্রে’প্তা’র হয়েছে। হয়ত তাদের শা’স্তি-টাস্তি দেবে। হয়ত আমাদের বলবে শা’স্তির মেয়াদ বাংলাদেশে এসে কমপ্লিট করবে। এটা আম’রা অন্যান্য দেশেরটাতে করি, তারাও আমাদের সাথে করবে।

ভা’রতের সঙ্গে বাংলাদেশের স’ম্প’র্ক বিবেচনায় তুলনামূলক আগেই পি কে হালদারকে ফেরত পাওয়ার প্রত্যাশা রেখে পররাষ্ট্রমন্ত্রী বলেন, আমা’র ধারণা, আমাদের সাথে ভা’রতের যে সোনালী অধ্যায়, তাতে অবশ্যই আম’রা অগ্রাধিকার ভিত্তিতে যা করতে চাই, তারা আমাদের কথা শুনবেন। সে অনুযায়ী কাজ হবে। হয়ত তার কিছু বিচার হবে। তারপরে হয়ত আমাদের দেবে।

পি কে হালদার আ’ট’কের বিষয়ে বাংলাদেশ সরকার এখনও আনুষ্ঠানিকভাবে কিছু জানে না। পররাষ্ট্রমন্ত্রীও কিছু জানে না বলে জানিয়েছেন। এ বিষয়ে জানতে পু’লিশের পক্ষ থেকে ভা’রতে চিঠি পাঠানো হয়েছে।

পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয় এমন কোনো উদ্যোগ নেবে কি না- প্রশ্নে মোমেন বলেন, আপনারা বললেন পরশুদিন সন্ধ্যা বেলায়, এই খবর। আমাদের অফিস-টফিস বন্ধ ছিল। যেটা করা প্রয়োজন, আম’রা করব। বলেছি তো, যা যা করার আম’রা সেটা করব।এদিকে ভা’রতে গ্রে’প্তা’র প্রশান্ত কুমা’র (পিকে) হালদারকে দেশে ফিরিয়ে আনতে নয়াদিল্লি ন্যাশনাল সেন্ট্রাল ব্যুরোতে (এনসিবি) চিঠি দিয়েছেন বাংলাদেশের এনসিবি। রোববার এই চিঠি দেওয়া হয়।

সোমবার যুগান্তরকে বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন বাংলাদেশ পু’লিশের এআইজি (এনসিবি) মহিউল ই’স’লা’ম। তিনি বলেন, পিকে হালদারের বি’রু’দ্ধে গত বছরের ৮ জানুয়ারী ইন্টারপোলের মাধ্যমে রেড নোটিশ জারি করা হয়ছিল। কিন্তু দীর্ঘদিনেও ইন্টারপোল থেকে কোনো কিছু জানানো হয়নি। সম্প্রতি পিকে হালদার ভা’রতে গ্রে’প্তা’র হওয়ায় তাকে দেশে ফিরিয়ে এনে বিচারের মুখোমুখি করার উদ্যোগ নেওয়া হয়েছে। এরই অংশ হিসেবে নয়াদিল্লির এনসিবিকে চিঠি দেওয়া হয়েছে।

তিনি আরো বলেন, পিকে হালদারকে দেশে ফিরিয়ে আনার ক্ষেত্রে পু’লিশের তেমন কিছু করার নেই। আম’রা কেবল এনসিবিকে চিঠি লিখতে পারি। আম’রা আমাদের কাজ করেছি। এখন যা কিছু করার তা কূটনৈতিক মাধ্যমেই করতে হবে।

 

Back to top button