জাতীয়

হাজি সেলিমের আত্মসম’র্পণের আবেদন, শুনানি দুপুরে

দু’র্নী’তির মা’ম’লায় ১০ বছর দ’ণ্ডিত আওয়ামী লীগের সংসদ সদস্য হাজি সেলিম বিচারিক আ’দা’লতে আত্মসম’র্পণের আবেদন করেছেন। আবেদনের শুনানি দুপুর ২টায় শুরু হবে।

রোববার সকাল সাড়ে ১০টার পর ঢাকার বিশেষ জজ আ’দা’লত-৭ এর বিচারক শহিদুল ই’স’লা’মের আ’দা’লতে তিনি এ আবেদন করেন।সংশ্লিষ্ট আ’দা’লতের পেশকার সাইদুল ই’স’লা’ম শাহীন এ তথ্য নিশ্চিত করেছেন।

অ’বৈ’ধ সম্পদ অর্জনের মা’ম’লায় গত ২৫ এপ্রিল সংসদ সদস্য হাজি সেলিমের ১০ বছরের সাজা বহাল রাখেন হা’ই’কো’র্ট। এরপর তাকে ৩০ দিনের মধ্যে আত্মসম’র্পণ করার নির্দেশ দেওয়া হয়। সেই নির্দেশে হাজি সেলিম আজ বিচারিক আ’দা’লতে আত্মসমপর্ণ করতে যাচ্ছেন।

গত ২ মে দ’ণ্ড মা’থায় নিয়ে হাজি সেলিম থাইল্যান্ড গেলে তা আলোচনা-সমালোচনার জন্ম দেয়। পরে ৫ মে দুপুরে দেশে ফিরে আসেন হাজি সেলিম। তখন জানিয়েছিলেন, শিগগিরই আ’দা’লতে আত্মসম’র্পণ করবেন তিনি।

আইনে বিকল্প পথ না থাকায় শেষ পর্যন্ত কারাগারে যেতেই হচ্ছে হাজি সেলিমকে।হাজি সেলিমের ব্যক্তিগত কর্মক’র্তা মহিউদ্দিন মাহমুদ বেলাল যুগান্তরকে জানান, রোববার দুপুর ২টা থেকে বেলা ৩টার মধ্যে স্পেশাল ট্রাইব্যুনালের ৭নং কোর্টে তিনি আত্মসম’র্পণ করতে পারেন।

হা’ই’কো’র্টের পূর্ণাঙ্গ রায় প্রকাশের পর সাজা’প্রাপ্ত হাজি সেলিম ঢাকা-৭ আসনের সংসদ সদস্য পদে থাকার বৈধতা নিয়ে নানা মহলে গুঞ্জন শুরু হয়। প্রশ্ন উঠে, আ’দা’লতের পূর্ণাঙ্গ রায়ের পর তার সংসদ সদস্য পদ থাকবে কিনা বা তাকে এ পদে রাখা নৈতিক বিবেচনায় কতটা সম’র্থনযোগ্য হবে।

সংবিধানের ৬৬(২)(ঘ) অনুচ্ছেদে বলা হয়েছে, একজন সংসদ সদস্য নৈতিক স্খলনজনিত ফৌজদারি অ’প’রা’ধে কমপক্ষে দুই বছরের সাজা’প্রাপ্ত হলে তার সংসদ সদস্য পদ বাতিল হবে। আর ফৌজদারি কার্যবিধির ৪২৬ ধারা অনুযায়ী তার সাজার রায় স্থগিত না হওয়া পর্যন্ত তিনি সংসদ সদস্য হিসাবে বিবেচিত হবেন না।

হাজি সেলিমের আইনজীবী সাঈদ আহমেদ রাজা যুগান্তরকে বলেন, হা’ই’কো’র্ট তাকে আত্মসম’র্পণ করতে ৩০ দিন সময় বেঁধে দিয়েছেন। অর্থাৎ দ’ণ্ডিত হলেও নির্ধারিত ৩০ দিন পর তা কার্যকর হবে। তাই এ সময়ে তিনি এক ধরনের জামিন সুবিধায় আছেন। হা’ই’কো’র্টের রায় বিচারিক আ’দা’লত ২৫ এপ্রিল গ্রহণ করেন। এ হিসাবে ২৫ মে পর্যন্ত তার আত্মসম’র্পণ করার সময় আছে। এ মুহূর্তে আইনি বিষয়গুলো দেখা হচ্ছে।

জ্ঞাত আয়বহির্ভূত সম্পদ অর্জনের দায়ে এক যুগ আগে বিচারিক আ’দা’লতের রায়ে হাজি সেলিমের ১৩ বছরের কারাদ’ণ্ড হয়েছিল। রায়ের বি’রু’দ্ধে তিনি হা’ই’কো’র্টে আপিল করেন। এ আপিলের শুনানি নিয়ে গত বছরের ৯ মা’র্চ হা’ই’কো’র্ট রায় দেন। তাতে তার ১০ বছরের সাজা বহাল রাখা হয়। ফেব্রুয়ারিতে হা’ই’কো’র্টের পূর্ণাঙ্গ রায় প্রকাশিত হয়। রায়ের অনুলিপি পাওয়ার ৩০ দিনের মধ্যে তাকে ঢাকার বিশেষ জজ আ’দা’লত-৭-এ আত্মসম’র্পণ করতে নির্দেশ দেন হা’ই’কো’র্ট। এর পর হা’ই’কো’র্টের দেওয়া পূর্ণাঙ্গ রায়সহ নথিপত্র ২৫ এপ্রিল বিচারিক আ’দা’লতে পাঠানো হয়।

Back to top button