জাতীয়

লা’ঠি হাতে ছাত্রদল সম্পাদক, যা বলছেন নেতাকর্মীরা

ছাত্রদলের সাবেক সহ-সাধারণ সম্পাদক সিরাজুল ই’স’লা’ম সিরাজ এ কথা বলেছেন, ‘দলীয় নেতাকর্মীদের রক্ষা করতেই ছাত্রদলের সাধারণ সম্পাদক সাইফ মাহমুদ জুয়েল লা’ঠি হাতে পিকেটিং করেছেন।তিনি মনে করেন, দলের সাধারণ সম্পাদকের সিদ্ধান্ত সঠিক ছিল।সিরাজুল ই’স’লা’ম সিরাজ বলেন, সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ছাত্রদল সাধারণ সম্পাদকের লা’ঠি হাতে যে ছবি প্রকাশ হয়েছে সেটা ছাত্রদল নেতাকর্মীদের রক্ষার জন্য।

তিনি বলেন, আম’রা বিশ্ববিদ্যালয়ে শান্তিপূর্ণ অবস্থান করছিলাম। হঠাৎ ছাত্রলীগের নেতাকর্মীরা বিনা উসকানিতে আমাদের ওপর হা’ম’লা চালায়। সে সময় ছাত্রদলের সাধারণ সম্পাদকের নেতৃত্বে ছাত্রদল যদি পাল্টা ধাওয়া না দিতেন তাহলে আমাদের অনেক নেতাকর্মীর প্রা’ণ যেতো। তাই আম’রা মনে করি আত্ম’রক্ষা ও পরিস্থিতি মোকাবেলায় তার ভূমিকা সঠিক ছিল।

এ সময় ছাত্রদলের সিনিয়র সহ-সভাপতি রাশেদ ইকবাল খান, সাংগঠনিক সম্পাদক আবু আফসান মো: ইয়াহিয়া, সাবেক সহ-সাধারণ সম্পাদক আকতারুজ্জামান, ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় ছাত্রদলের যুগ্ম আহ্বায়ক এজাজুল কবির রুয়েল, সজীব মজুম’দার, শরীফুল ই’স’লা’ম শরীফ, জহুরুল হক হলের সাধারণ সম্পাদক ইব্রাহিম খলিল, আহ্বায়ক সদস্য মানসুরা আলমসহ ৩৪ থেকে ৪০ জন নেতাকর্মী গুরুতর আ’হত হন।

জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয় ছাত্রদলের সাধারণ সম্পাদক আসাদুজ্জামান আসলাম বলেন, মঙ্গলবার সকালে কেন্দ্রীয় ছাত্র দলের নেতৃত্বে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ে যায় ছাত্রদল। এ সময় ছাত্রলীগের নেতাকর্মীরা ছাত্রদল নেতা কর্মীর ওপর হা’ম’লা চালালে ছাত্রদলের কেন্দ্রীয় সাধারণ সম্পাদক সাইফ মাহমুদ জুয়েলের নেতৃত্বে ছাত্রলীগের নেতাকর্মীদের ধাওয়া দেয়া হয়। এ সময় উভয় পক্ষের সং’ঘ’র্ষে ছাত্রদল ও ছাত্রলীগের অর্ধশতাধিক নেতাকর্মী আ’হত হয়। আ’হতদের ঢাকা মেডিক্যালসহ বিভিন্ন হাসপাতা’লে ভর্তি করা হয়।

এ ঘটনার পর থেকে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় ছাত্রলীগসহ ঢাকার বিভিন্ন ইউনিটের ছাত্রলীগের নেতা-কর্মীদের বিশ্ববিদ্যালয় এলাকায় রড, লা’ঠিসোটাসহ দেশীয় অ’স্ত্রে সুসজ্জিত হয় মহড়া দিতে দেখা যায়।ছাত্রদলের সাধারণ সম্পাদক সাইফ মাহমুদ জুয়েল বলেন, আম’রা প্রতিদিনের ন্যায় জাতীয়তাবাদী ছাত্রদলের নেতাকর্মীদের নিয়ে বিশ্ববিদ্যালয় শান্তিপূর্ণ অবস্থান করছিলাম। বিনা উসকানিতে আমাদের ওপর হা’ম’লা করে আমাদের নেতা-কর্মীদেরকে গুরুতর আ’হত করা হয়।

তিনি অ’ভিযোগ করে বলেন, ছাত্রলীগ বহিরাগত স’ন্ত্রা’সীদের নিয়ে এসে আমাদের ওপর হা’ম’লা চালায়। আমাদের আ’হত নেতাকর্মীদের হাসপাতা’লে নিতে বাধা দিচ্ছে। এমনকি ঢাকা মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতা’লের ই’মা’রজেন্সিতে আমাদের ছাত্রদলের আ’হত নেতাকর্মীরা চিকিৎসা নিতে যায়। সেখানেও লা’ঠিসোটা হাতে যায় ছাত্রলীগের বহিরাগত স’ন্ত্রা’সীরা। আম’রা আজকের এই ন্যাক্কারজনক হা’ম’লার তীব্র নিন্দা ও প্রতিবাদ জানাচ্ছি।

Back to top button