জাতীয়

বিএনপির কার্যালয় ভাঙচুরের অ’ভিযোগ ছাত্রলীগের বি’রু’দ্ধে

কুমিল্লার চৌদ্দগ্রামে ছাত্রলীগের মিছিল থেকে হা’ম’লা চালিয়ে চৌদ্দগ্রাম উপজে’লা বিএনপির কার্যালয় ভাঙচুর করা হয়েছে বলে অ’ভিযোগ উঠেছে। বুধবার বিকালে উপজে’লা সদরে এ ঘটনা ঘটে। তবে এ নিয়ে একে অ’পরকে দোষারোপ করছেন।উপজে’লা বিএনপির দাবি- ছাত্রলীগের মিছিল থেকে পূর্ব পরিকল্পনা অনুযায়ী কার্যালয়টি ভাঙচুর করা হয়। আর উপজে’লা ছাত্রলীগের সভাপতির দাবি- তাদের শান্তিপূর্ণ মিছিল শেষে বিএনপি নৈরাজ্য সৃষ্টির জন্য নিজেরাই কার্যালয়ের আসবাবপত্র ভাঙচুর করে।

জানা গেছে, ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের ঘটনাকে কেন্দ্র করে বুধবার বিকালে উপজে’লা ছাত্রলীগের উদ্যোগে বি’ক্ষো’ভ মিছিলের আয়োজন করা হয়। মিছিলটি স্থানীয় সাংসদের কার্যালয় থেকে শুরু হয়ে ঢাকা-চট্টগ্রাম মহাসড়কের চৌদ্দগ্রাম বাজারে অবস্থিত বিএনপি কার্যালয়ে গিয়ে আসবাবপত্র, জিয়াউর রহমান, খালেদা জিয়া ও তারেক রহমানের ছবি ভাঙচুর করে। তবে এ সময় কার্যালয়ে বিএনপির কোনো নেতাকর্মী ছিল না।

চৌদ্দগ্রাম উপজে’লা বিএনপির সভাপতি মো. কা’ম’রুল হুদা অ’ভিযোগ করে বলেন, দলীয় কার্যালয়টিতে তালা লাগানো ছিল। আমাদের কোনো কর্মসূচি ছিল না। ছাত্রলীগর কর্মীরা তালা ভে’ঙে কার্যালয়ে ঢুকে আসবাবপত্র ভাঙচুর করে এবং জিয়াউর রহমান, খালেদা জিয়া ও তারেক রহমানের ছবি পদদলিত করে।এদিকে চৌদ্দগ্রাম উপজে’লা ছাত্রলীগের সভাপতি তৌফিকুল ই’স’লা’ম সবুজ দাবি করে জানান, তাদের শান্তিপূর্ণ বি’ক্ষো’ভ মিছিলটি শেষের পরেই বিএনপি নৈরাজ্য সৃষ্টির লক্ষ্যে নিজেদের কার্যালয় নিজেরাই ভাঙচুর করে।

অ’পরদিকে সন্ধ্যায় চৌদ্দগ্রাম উপজে’লা বিএনপি ও সহযোগী সংগঠনের উদ্যোগে বি’ক্ষো’ভ মিছিল ও প্রতিবাদ সভা অনুষ্ঠিত হয়েছে। এর আগে একটি বি’ক্ষো’ভ মিছিল ঢাকা-চট্টগ্রাম মহাসড়কের চৌদ্দগ্রাম বাজার প্রদক্ষিণ করে। পরে প্রতিবাদ সভায় বক্তব্য রাখেন পৌর বিএনপির সদস্য সচিব হারুন অর রশীদ মজুম’দার, পৌর যুবদলের সাধারণ সম্পাদক আকতার হোসেন, উপজে’লা ছাত্রদলের সাবেক সাধারণ সম্পাদক আমিনুল ই’স’লা’ম ছুট্টু, যুবদল নেতা শরীফ হাসানসহ আরও অনেকে।

এ সময় বক্তারা বলেন, ছাত্রলীগ চৌদ্দগ্রামে নৈরাজ্য সৃষ্টি করতেই মিছিল থেকে দলীয় কার্যালয়ের তালা ভে’ঙে ঢুকে ব্যাপক তা’ণ্ড’ব চালায়। আগামীতে যদি আবারও ছাত্রলীগ এ ধরনের কার্যকালাপ করে, তাহলে তাদেরকে কঠোর ভাবে জবাব দেওয়া হবে।

Back to top button