রাজনীতি

পদ্মা সেতুর ৩০ হাজার কোটি টাকা কোথায়, প্রশ্ন আমীর খসরু

বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য আমীর খসরু মাহমুদ চৌধুরী বলেছেন, পদ্মা সেতুতে বাড়তি ৩০ হাজার কোটি টাকা খরচ দেখানো হয়েছে। ১০ হাজার কোটি টাকার সেতু ৪০ হাজার কোটি টাকা।বাকি ৩০ হাজার কোটি টাকা কোথায়? আম’রা জানি কোথায় গেছে। এগুলো সব বের হবে।
শুক্রবার (২৭ মে) বিকেলে নগরের পুরাতন রেল স্টেশন চত্বরে বেগম খালেদা জিয়াকে হ’ত্যার হু’মকির প্রতিবাদে চট্টগ্রাম নগর, উত্তর ও দক্ষিণ জে’লা বিএনপির কেন্দ্র ঘোষিত বি’ক্ষো’ভ সমাবেশে প্রধান অ’তিথির বক্তব্যে তিনি এসব কথা বলেন।

আমীর খসরু বলেন, পদ্মা ব্রিজ থেকে নাকি বেগম খালেদা জিয়াকে ফেলে দেবে। মনে হয় বাপের টাকা দিয়ে ব্রিজ করেছি, এখানে কেউ উঠলে তাদের ফেলে দেব। আরে টাকা’টা কার? ১০ হাজার কোটি টাকার ব্রিজ ৪০ হাজার কোটি টাকায় তৈরি করা হয়েছে। বাকি ৩০ হাজার কোটি টাকা কোথায় গেছে। বড় বড় কথা বলার আগে উত্তর দিতে হবে।

প্রধান বক্তার বক্তব্যে কেন্দ্রীয় বিএনপির সাংগঠনিক সম্পাদক মাহবুবের রহমান শামীম বলেন, আওয়ামী লীগের চরিত্রই হচ্ছে জো’র করে ক্ষমতায় থাকা। আগামী দ্বাদশ সংসদ নির্বাচনেও তারা জো’র করে, সন্ত্রাস দিয়ে ক্ষমতায় যাওয়ার পরিকল্পনা করছে। এখন থেকে যেখানে হা’ম’লা করবে সেখানে পাল্টা আ’ঘাত করতে হবে।

সভাপতির বক্তব্যে নগর বিএনপির আহবায়ক ডা. শাহাদাত হোসেন বলেন, বেগম খালেদা জিয়াকে পদ্মা নদীতে টুস করে ফেলে দেওয়ার যে হু’মকি দেওয়া হয়েছে তা রীতিমতো হ’ত্যার হু’মকি। একজন সাবেক প্রধানমন্ত্রী স’ম্প’র্কে যে ভাষায় কথা বলেছেন তা গোটা জাতির জন্য লজ্জাজনক। দেশবাসী বিস্মিত।

নগর বিএনপির সদস্যসচিব আবুল হাশেম বক্কর বলেন, বেগম খালেদা জিয়াকে দেশের জনগণ একাধিকবার ভোট দিয়ে নির্বাচিত করেছেন। দেশে গণতন্ত্র প্রতিষ্ঠা ও স্বৈরাচার বিরোধী আ’ন্দোলনে তিনি আপসহীন। অথচ শেখ হাসিনা তাকে নিয়ে শুধু বাজে মন্তব্যই করেননি, খালেদা জিয়াকে নিয়ে রাজনৈতিক বিদ্বেষও ছড়িয়েছেন। আম’রা তার বক্তব্যের তীব্র নিন্দা ও ঘৃ’ণা জানাই।

নগর বিএনপির যুগ্ম আহবায়ক ইয়াছিন চৌধুরী লিটনের পরিচালনায় সমাবেশে বিশেষ অ’তিথির বক্তব্য দেন সাবেক মন্ত্রী জাফরুল ই’স’লা’ম চৌধুরী, কেন্দ্রীয় বিএনপির শ্রম সম্পাদক এএম নাজিম উদ্দিন, দক্ষিণ জে’লা বিএনপির আহবায়ক আবু সুফিয়ান, নগর বিএনপির সিনিয়র যুগ্ম আহবায়ক এমএ আজিজ ও যুগ্ম আহবায়ক মো. মিয়া ভোলা, আবদুস সাত্তার প্রমুখ।

Back to top button