জাতীয়

প্রস্তাবিত বাজেট নিয়ে যা বললেন ফখরুল

প্রস্তাবিত ২০২২-২৩ অর্থবছরের জন্য ৬ লাখ ৭৮ হাজার ৬৪ কোটি টাকার বাজেট জাতীয় সংসদে উপস্থাপন করেছেন অর্থমন্ত্রী আ হ ম মু’স্তফা কা’মাল।

বৃহস্পতিবার বিকাল ৩টায় সংসদে তিনি বাজেট উত্থাপন শুরু করেন। স্পিকার ড. শিরীন শারমিন চৌধুরীর সভাপতিত্বে এবং সংসদ নেতা প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার উপস্থিতিতে স্বাধীন বাংলাদেশের ৫১তম বাজেটের মূল স্লোগান কোভিডের অ’ভিঘাত কাটিয়ে উন্নয়নের ধারাবাহিকতায় প্রত্যাবর্তন। যেখানে মূল লক্ষ্য সক্ষমতার উন্নয়ন।

বৈশ্বিক ঝুঁ’কি কাটিয়ে অর্থনীতির স্থিতিশীলতার সঙ্গে জনজীবনে স্বস্তি ফেরানোই এবারের বাজেটের মূল লক্ষ্য।তবে প্রস্তাবিত এই বাজেট নিয়ে বিএনপি মহাসচিব মির্জা ফখরুল ই’স’লা’ম আলমগীর বলেছেন, ‘ভবিষ্যতে তারা (ক্ষমতাসীন) কীভাবে আরও লুট করবে- তার একটা হিসাব হচ্ছে এ বাজেট। তাই বিএনপির কাছে এ বাজেটের কোনো গুরুত্ব নেই।’

বিকালে কাফরুল থা’না বিএনপির চারটি ওয়ার্ডের কাউন্সিলে বাজেটের তাৎক্ষণিক প্রতিক্রিয়ায় তিনি একথা বলেন।ফখরুল আরও বলেন, ‘এর আগে বাজেট প্রতিক্রিয়া দিয়েছি। কিন্ত এবার বাজেট নিয়ে প্রতিক্রিয়া দিতে চাই না। কোন বাজেটের প্রতিক্রিয়া দেব। কার বাজেট। কারা এ বাজেট করছে। যারা জনগণের প্রতিনিধি নয় তারা এ বাজেট করছে। যাদের বাজেট দেওয়ার কোনো অধিকার নেই। নিজেদের লুটপাটের জন্য তারা বাজেট তৈরি করে। ভবিষ্যতে আরও কত কোটি টাকা লুট করবে তার একটি হিসাব হচ্ছে এ বাজেট।’

২০২২-২৩ অর্থবছরের জন্য প্রস্তাবিত ৬ লাখ ৭৮ হাজার ৬৪ কোটি টাকার বাজেটের আকার জিডিপির ১৫ দশমিক ২ শতাংশ। পরিচালনসহ অন্যান্য খাতে মোট ৪ লাখ ৩১ হাজার ৯৯৮ কোটি টাকা এবং বার্ষিক উন্নয়ন কর্মসূচিতে ২ লাখ ৪৬ হাজার ৬৬ কোটি টাকা বরাদ্দের প্রস্তাব করা হয়েছে।

বাজেটে মোট রাজস্ব আয়ের লক্ষ্যমাত্রা নির্ধারণ করা হয়েছে ৪ লাখ ৩৩ হাজার কোটি টাকা। মোট ঘাটতির পরিমাণ ২ লাখ ৪৫ হাজার ৬৪ কোটি টাকা, যা জিডিপির ৫ দশমিক ৫ শতাংশ। অভ্যন্তরীণ ও বৈদেশিক উৎস থেকে এই ঘাটতি মেটানো হবে বলে জানিয়েছেন অর্থমন্ত্রী।

Back to top button