জাতীয়

মহানবী (সা.)কে কটূক্তির প্রতিবাদের মিছিল থেকে আ.লীগের সম্মেলনে হা’ম’লা, আ’ট’ক ১৬

আজ বাদ জুম্মা গাইবান্ধা জে’লা শহরে বিশ্বনবী মুহাম্ম’দকে (সা.) কটূক্তির প্রতিবাদে ই’মাম-ওলামা পরিষদের মিছিল থেকে পৌর আওয়ামী লীগের সম্মেলন মঞ্চে হা’ম’লার ঘটনা ঘটেছে। এ সময় হা’ম’লাকারীরা চেয়ার-টেবিল ও মাইক ভাঙচুর করাসহ বেশ কিছু ব্যানার-ফেস্টুন ছিঁড়ে ফেলে। আজ শুক্রবার ১০ জুন জুম্মা’র নামাজের পর শহরের পৌর শহীদ মিনার এলাকায় এই হা’ম’লার ঘটনা ঘটে। যদিও হা’ম’লার পরপরেই জ’ড়ি’ত স’ন্দেহে ঘটনাস্থল থেকে পু’লিশ ১৬ জনকে আ’ট’ক করেছে বলে জানা গেছে।

এ বিষয়ে পু’লিশ ও স্থানীয়রা জানায়, দুপুরে জুম্মা’র নামাজের পর শহরের বিভিন্ন ম’স’জিদ থেকে বিশ্বনবীকে কটূক্তির প্রতিবাদে মিছিল বের হয়। শহরের কেন্দ্রীয় জামে ম’স’জিদ থেকে বের হওয়া মিছিলটি কাচারী বাজার সমজিদের সামনে এসে সমাবেশ করে। কিন্তু সমাবেশস্থলের পাশেই শহীদ মিনার চত্ত্বরে পূর্ব নির্ধারিত পৌর আওয়ামী লীগের সম্মেলন মঞ্চ থেকে মাইকের উচ্চ আওয়াজ আসে।

এ সময় কিছু মিছিলকারী উত্তেজিত হয়ে মাইক বন্ধের দাবি জানায়। এক পর্যায়ে তারা মঞ্চে হা’ম’লা চালিয়ে মাইক, চেয়ার-টেবিল ও ব্যানার-ফেস্টুন ভাঙচুর করে। এই হা’ম’লা-ভাঙচুর ঘটনার পর তাৎক্ষণিক প্রতিবাদ জানিয়ে একটি বিক্ষোভ মিছিল করে অওয়ামী লীগ ও অঙ্গসংগঠনের নেতাকর্মীরা। এ সময় হা’ম’লাকারীদের দ্রুত গ্রে’প্তা’রের দাবি জানানো হয়।

এ বিষয়ে জে’লা আওয়ামী স্বেচ্ছাসেবক লীগের সাধারণ সম্পাদক মোস্তাক আহমেদ রঞ্জু বলেন, পৌর আওয়ামী লীগের সম্মেলন ভন্ডুল করতে আগে থেকেই পরিকল্পনা ছিল। সেই পরিকল্পনা মোতাবেক বিশ্বনবীকে কটূক্তির প্রতিবাদের মিছিলে অংশ নিয়ে হা’ম’লার ঘটনা ঘটানো হয়। এই হা’ম’লাকারীরা জামায়াত-শি’বিরের নাকি ই’স’লা’মী কোনো দলের নেতাকর্মী তা ত’দ’ন্ত করলে পু’লিশ নিশ্চিত হতে পারবে।

এ ঘটনার সত্যতা স্বীকার করে গাইবান্ধা সদর থা’নার ভা’রপ্রাপ্ত কর্মক’র্তা (ওসি) মো. মাসুদুর রহমান জানান, হা’ম’লার ঘটনায় জ’ড়ি’ত স’ন্দেহে ১৬ জনকে আ’ট’ক করা হয়েছে। আ’ট’ককৃতদের জিজ্ঞাসাবাদ করে হা’ম’লার কারণ এবং জ’ড়ি’ত অন্যদের শনাক্তের চেষ্টা চলছে।

Back to top button