রাজনীতি

খালেদা জিয়া ৭২ ঘণ্টার নিবিড় পর্যবেক্ষণে

হৃদপিন্ডে আরও দুটি ব্লকসহ নানা জটিলতার কারণে বিএনপি চেয়ারপারসন খালেদা জিয়াকে ৭২ ঘণ্টার নিবিড় পর্যবেক্ষণে রেখেছে এভা’র কেয়ার হাসপাতা’লের মেডিক্যাল বোর্ড।

রোববার (১২জুন) দুপুরে বিএনপি চেয়ারপারসনের ব্যক্তিগত চিকিৎসক অধ্যাপক ডা. এজেডএম জাহিদ হোসেন এ তথ্য জানান।

তিনি বলেন, শনিবার (১০ জুন) ম্যাডামের হার্টে এনজিওগ্রাম করার পর তিনটি ব্লক পাওয়া যায়। একটা ব্লক মেইন গ্রেট ভ্যাসেলে, যেটা বাম দিকের মধ্যে ৯৫%-এর বেশি ব্লক ছিল। যে কারণে উনার হার্ট অ্যাটাক হয়েছে। এনজিও গ্রামের পর ওখানে সঙ্গে সঙ্গে স্টেন্টিং করা (রিং পরানো) হয়েছে। এখন উনি সিসিইউতে কার্ডিওলজিস্টদের নিবিড় পর্যবেক্ষণে আছেন।

ডা. এজেডএম জাহিদ হোসেন আরও বলেন, এখন পর্যন্ত উনি (খালেদা জিয়া) শা’রীরিকভাবে যে অবস্থায় আছেন ডাক্তারদের বক্তব্য হলো যে, ৭২ ঘণ্টা না গেলে কোনো মন্তব্য করা সঠিক হবে না।

বাকি দুইটি ব্লক স’ম্প’র্কে অধ্যাপক জাহিদ বলেন, ম্যাডামের শরীরিক অবস্থা পর্যবেক্ষণ করে পরবর্তিতে অ’পসারণ করা হবে। কারণ উনার ক্রনিক কিডনি ডিজিজ ও ক্রনিক লিভা’র ডিজিস আছে। যেসব ওষুধ উনি সেবন করেন সেক্ষেত্রে কিডনির ক্ষতিগ্রস্থতার পরিমাণ বেড়ে যাওয়ার আশ’ঙ্কা থাকে। সেজন্য আরও দুটি ব্লক অ’পসারণের কাজ বাকী রাখা হয়েছে। নানা দিক বিবেচনা করে মেডিকেল বোর্ড ক্রিটিক্যালি যেটা বেশি উনাকে বেশি শা’রীরিকভাবে ক’ষ্ট দিচ্ছে সেটাতে স্টেন্টিং করেছে।

তিনি বলেন, রোগীর চিকিৎসার ব্যাপারে ডাক্তাররা সার্বক্ষণিকভাবে নজর রাখছেন। টাইম টু টাইম উনার স্বাস্থ্যের প্রতি নজর রাখছেন। ম্যাডামের পরিবারসহ কাউকে ডাক্তাররা রোগীর কাছে এলাউ করছেন না। আম’রা নিজেরাও সেখানে বেশি যাতায়াত করছি না। বাইরে থেকে যতটুকু সহযোগিতা করার করছি।

অধ্যাপক জাহিদ জানান, বিএনপি চেয়ারপারসন বেগম খালেদা জিয়ার পরিবার আশু আরোগ্য কা’মনায় দেশবাসীর কাছে দোয়া চেয়েছেন।

গত শুক্রবার (১০ জুন) দিনগত গভীর রাতে গুলশানের বাসা ‘ফিরোজা’য় হঠাৎ বুকে ব্যাথা অনুভব করলে দ্রুত রাজধানীর বসুন্ধ’রায় এভা’র কেয়ার হাসপাতা’লে ভর্তি করা হয় খালেদা জিয়াকে।

Back to top button