জাতীয়

মৌসুমী আপার সঙ্গে কথা বললেই সব জানতে পারবেন

চিত্রনায়ক ওম’র সানী ও জায়েদ খানের মধ্যকার চড়-পি’স্ত’ল ঘটনা নিয়ে ঢালিউডে উ’ত্তে’জ’নার পারদ চরমে।অ’ভিনেতা মনোয়ার হোসেন ডিপজলের ছে’লের বিয়েপরবর্তী সংবর্ধনা অনুষ্ঠানে জায়েদকে সবার সামনে চড় মা’রেন ওম’র সানী। মেজাজ হারিয়ে নাকি জায়েদ পি’স্ত’ল বের করে হু’মকি দিয়ে বলেন— গু’লি করে দেব।

যদিও জায়েদ বা ডিপজলের পক্ষ থেকে পি’স্ত’ল বের করার বিষয়টি অস্বীকার করা হচ্ছে।এরই মধ্যে জায়েদের বি’রু’দ্ধে গুরুতর অ’ভিযোগ নিয়ে চলচ্চিত্র শিল্পী সমিতিতে হাজির হন ওম’র সানী।সানীর অ’ভিযোগ, বিগত চার মাস ধরে জায়েদ চিত্রনায়িকা মৌসুমীর সঙ্গে খা’রা’প আচরণ করে যাচ্ছেন। তাকে ডিস্টার্ব করছেন। যে কারণে গত শুক্রবার বিয়ের অনুষ্ঠানে জায়েদ খানকে চড় মে’রেছেন তিনি।

তবে মৌসুমীকে ডিস্টার্বের অ’ভিযোগ অস্বীকার করেছেন জায়েদ খান। তার ভাষ্যে— সিনেমা-শুটিং নিয়ে মৌসুমীর সঙ্গে প্রায়শই কথা হয় তার। সেটা ডিস্টার্বের মতো কিছু নয়। মৌসুমীর সঙ্গে কথা বললেই বিষয়টি পরিষ্কার হবে।

এ প্রসঙ্গে জায়েদ খান বলেন, ‘আমি কখনই তাকে (মৌসুমী) হেয়প্রতিপন্ন করিনি। এটা একদম ভু’য়া কথা। এই তো ১৫-২০ দিন আগেও ডিপজল ভাইসহ মৌসুমী আপা মিলে মিটিং করেছি। সেখানে আমাদের কথাও হয়েছে। স’ম্প’র্ক খা’রা’প হলে মিটিংয়ে আমাদের একসঙ্গে থাকার কথা নয়। এ ছাড়া সিনেমা’র শুটিংসহ বিভিন্ন বিষয় নিয়ে আমাদের মাঝেমধ্যেই কথা হয়। এ ব্যাপারে মৌসুমী আপার সঙ্গে কথা বললেই সব জানতে পারবেন।’

অবশ্য এ ঘটনায় এখন পর্যন্ত চিত্রনায়িকা মৌসুমী কোনো বক্তব্য দেননি। তাকে ঘিরে ঘটনা আবর্তিত হলেও তিনি বরাবরই চুপ রয়েছেন।এদিকে পি’স্ত’ল বের করার বিষয়টি বরাবরই অস্বীকার করেছেন জায়েদ খান। উল্টো ওম’র সানীকে মাতাল বলে অ’ভিযোগ আনেন জায়েদ।

যুগান্তরকে তিনি বলেছেন, ‘পি’স্ত’ল ঠেকিয়ে হু’মকি দেওয়ার কথা একেবারেই বানোয়াট। প্রথম কথা হচ্ছে— যেখানে অনুষ্ঠান হচ্ছিল সেখানে হলরুমে সিকিউরিটি ইলেকট্রনিক গেটের চেকআপ পেরিয়ে পি’স্ত’ল নিয়ে যাওয়া অসম্ভব। সবচেয়ে বড় কথা হচ্ছে— ওখানে কোনো ধরনের অ’স্ত্র নিয়ে যাওয়া নিষিদ্ধ। আর তিনি (ওম’র সানী) সেদিন বেশ মাতাল ছিলেন। ম’দ্যপ অবস্থায় তিনি উপস্থিত হয়ে অযথা চিল্লাচিল্লি করছিলেন। এ কারণে আমি তাকে ঠাণ্ডা স্বরে কথা বলতে বলেছি। এর বেশি কিছু হয়নি। ডিপজল ভাই এসে সব ঠিকঠাকও করে দিয়েছেন। এর পর তিনি চলে যান।’

Back to top button