জাতীয়

যুগপৎ আ’ন্দোলনে একমত বিএনপি-এলডিপি

সরকারের বি’রু’দ্ধে বৃহত্তর ঐক্য গড়ে তোলার লক্ষ্যে সমমনা রাজনৈতিক দলগুলোর সঙ্গে ধারবাহিক বৈঠক করছে বিএনপি। তারই ধারাবাহিকতায় বৃহস্পতিবার (১৬ জুন) বিকেলে এলডিপি চেয়ারম্যান ড. কর্নেল অলি আহম’দের মহাখালী ডিওএইচএসের বাসায় বৈঠক করেছে বিএনপি।

বৈঠকের পর সাংবাদিকদের সঙ্গে কথা বলেন কর্নেল অলি আহম’দ ও মির্জা ফখরুল ই’স’লা’ম আলমগীর। তারা বলেন, যুগপৎভাবে সরকার পতন আ’ন্দোলন, নিরপেক্ষ সরকারের অধীনে নির্বাচন, খালেদা জিয়ার মুক্তি, বিদেশে চিকিৎসা ও দলীয় নেতাকর্মীদের মিথ্যা মা’ম’লা প্রত্যাহারের বিষয়ে তারা একমত হয়েছেন।

কর্নেল অলি আহম’দ বলেন, বিএনপির সঙ্গে এটা তৃতীয় মিটিং। এর আগের মিটিংয়ে মির্জা আব্বাস ও গয়েশ্বর চন্দ্র রায় উপস্থিত ছিলেন। আজকের মিটিংয়ে মহাসচিব ও নজরুল ই’স’লা’ম খান এসেছেন। আগেরদিন যে আলোচনা করেছি, মোটামুটি একই আলোচনা আজকেও হয়েছে। বর্তমান যে সরকার আছে তারা দেশকেধ্বং,স করে দিচ্ছে। দেশের জনগণ অস্বস্তিকর পরিবেশে বসবাস করছে। কারও জানমালের নিরাপত্তা নেই। মৌলিক অধিকার নেই। ন্যায় বিচার নেই। একটা মগের মুল্লুকে আম’রা বসবাস করছি। এরকম অবস্থা দেশের জনগণের জন্য কা’ম্য নয়। আম’রা যারা মুক্তিযু’দ্ধ করেছি, একটা আশা আকাঙ্খা নিয়েই আম’রা যু’দ্ধে গিয়েছিলাম। এ ধরনের লুটপাট, বিদেশে টাকা পাচার, বড় বড় প্রকল্প থেকে টাকা লুট করার জন্য আম’রা এই দেশ স্বাধীন করি নাই। আম’রা চাই এটার অবসান হোক। এই সরকার অনেকদিন ক্ষমতায় ছিল, তাদেরও বোঝা উচিত তাদেরকে জনগণ চায় না। আম’রা সর্বসম্মতিক্রমে সিদ্ধান্ত নিয়েছি, এই সরকারের পতন না হওয়া পর্যন্ত আমাদের আ’ন্দোলন অব্যাহত থাকবে এবং আ’ন্দোলনের মাধ্যমে এই সরকারের পতন ঘটাতে হবে।

তিনি আরও বলেন, আমাদের দেশনেত্রী তিনবারের প্রধানমন্ত্রী, সাবেক রাষ্ট্রপতি ও সাবেক সে’না প্রধান যিনি দেশের স্বাধীনতা ঘোষণা করেছেন, সেই শহীদ রাষ্ট্রপতি জিয়াউর রহমানের স্ত্রী’। তার মুক্তি চাই এবং অনতিবিলম্বে তাকে বিদেশে উন্নত চিকিৎসার জন্য পাঠানো হোক, সেটাও আম’রা এই অ’বৈ’ধ সরকারের কাছে দাবি করছি। এছাড়া যেসব রাজনৈতিক ব’ন্দিরা জে’লে আছে তাদের মুক্তি চাই এবং যেসব মিথ্যা মা’ম’লা আছে তা প্রত্যাহার চাই। আমি আবারও বলবো, বেগম জিয়ার মুক্তি, নেতাকর্মীদের মুক্তি, মিথ্যা মা’ম’লা প্রত্যাহার এই সরকারের পতন এবং নির্দলীয় নিরপেক্ষ সরকারের অধীনে সকলের অংশগ্রহণের মাধ্যমে আগামী জাতীয় সংসদ নির্বাচন বিষয়ে আম’রা একমত হয়েছি।

মির্জা ফখরুল ই’স’লা’ম আলমগীর বলেন, দলের সিদ্ধান্ত হলো, দেশের মানুষের অধিকার হ’র’ণ করা এই ফ্যাসিবাদী সরকারকে সরিয়ে জনগণের সরকার প্রতিষ্ঠা করা। এ বিষয়ে আম’রা একমত। আম’রা সে লক্ষ্যে কাজ করছি। সব রাজনৈতিক দলেল সঙ্গে আলোচনা করছি।

তিনি বলেণ, নতুন নির্বাচন কমিশন গঠন করতে হবে কারণ আম’রা বিশ্বা’স করি, এই নির্বাচন কমিশনকে দিয়ে কখনও সুষ্ঠু নির্বাচন হবে না। এটা বুধবার সিলেটে প্রমাণিত হয়েছে। আম’রা আশা করি, সব রাজনৈতিক দলের সঙ্গে আলোচনা করে যুগপৎভাবে একটা আ’ন্দোলন গড়ে তুলতে সক্ষম হবো। সেই আ’ন্দোলনের মধ্য দিয়ে এই অ’বৈ’ধ সরকারের পতন ঘটিয়ে জনগণের সরকার প্রতিষ্ঠা করতে সক্ষম হবো।

এসময় এলডিপির মহাসচিব রেদোয়ান আহমেদ, প্রেসিডিয়াম সদস্য নূরুল আলম, ড. নেয়ামুল বশির, ড. আওরঙ্গজেব বেলাল, প্রিন্সিপাল সাকলাইন খান, সৈয়দ মাহবুব মোর্শেদ উপস্থিত ছিলেন।

 

Back to top button