জাতীয়

‘বিশ্বের ১১০ দেশে বাড়ছে ক’রো’নার সংক্রমণ’

সারা বিশ্বে ক’রো’নার সংক্রমণ আবারো বৃদ্ধি পাচ্ছে। কিছুদিন আগেই ভাই’রাসটির দাপট নিম্নমুখী হওয়ায় স্বস্তির নিঃশ্বা’স নিচ্ছিল মানুষ। কিন্তু হঠাৎ করেই গত কয়েক দিন ধরে আ’ক্রা’ন্ত ও মৃ’ত্যু আবারো ঊর্ধ্বমুখী।সারা বিশ্বে এই ক’রো’না মহামা’রির অবস্থার পরিবর্তন ঘটলেও এটি পুরোপুরি শেষ হয়ে যায়নি। বর্তমানে ১১০টি দেশে ক’রো’নার সংক্রমণ বাড়ছে বলে সতর্ক করেছে বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা (ডব্লিউএইচও)। বুধবার (২৯ জুন) ডব্লিউএইচও-এর মহাপরিচালক টেড্রোস আধানোম গেব্রেয়াসুস এই তথ্য জানান।

তিনি বলেন, এই মহামা’রি পরিবর্তন হচ্ছে তবে এটি শেষ হয়নি। ক’রো’না পরীক্ষা ও জিনোম সিকোয়েন্স কমে যাওয়ায় কোভিড-১৯ ভাই’রাসের ধরন পরিবর্তন চিহ্নিত করার ক্ষমতা হু’মকির মধ্যে রয়েছে। এর মানে হলো ওমিক্রনসহ ভবিষ্যতের উদীয়মান ধরনগুলো বিশ্লেষণ করা কঠিন হয়ে উঠছে। তিনি আরও বলেন, বিএ.৪ এবং বিএ.৫ উপধরনের কারণে ১১০টি দেশে ক’রো’নার সংক্রমণ বাড়ছে। যার ফলে বিশ্বব্যাপী আ’ক্রা’ন্তের সংখ্যা ২০ শতাংশ বৃদ্ধি পেয়েছে এবং বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার ছয়টি অঞ্চলের মধ্যে তিনটিতে মৃ’ত্যু বেড়েছে; যদিও বৈশ্বিক পরিসংখ্যান তুলনামূলকভাবে স্থিতিশীল রয়েছে।

ডব্লিউএইচও সব দেশকে তাদের জনসংখ্যার কমপক্ষে ৭০ শতাংশকে টিকা দেওয়ার আহ্বান জানিয়েছে বলে সাংবাদিক সম্মেলনে বলেন গেব্রেয়াসুস।তিনি আরো জানান, গত ১৮ মাসে বিশ্বব্যাপী ১২ বিলিয়নেরও বেশি ক’রো’নার টিকা বিতরণ করা হয়েছে। ডব্লিউএইচও প্রধান বলেন, নিম্ন-আয়ের দেশগুলোর লাখ লাখ স্বাস্থ্যকর্মী এবং বয়স্ক মানুষসহ বহু মানুষ এখনও টিকা পাননি। এর মানে তারা ভাই’রাসের ভবিষ্যৎ ঢেউয়ের জন্য বেশি ঝুঁ’কিপূর্ণ। মাত্র ৫৮টি দেশ ৭০ শতাংশের লক্ষ্যমাত্রা পূরণ করেছে। তবে কেউ কেউ বলেছেন, নিম্ন আয়ের দেশগুলোর পক্ষে এটি সম্ভব নয়।

Back to top button