জাতীয়

পবিত্র হ’জের জন্য কেনা ইহরামের কাপড়ে চিরবিদায় সাবেক সচিবের

পবিত্র হ’জের জন্য কেনা কাপড় পরে চিরবিদায় নিলেন সাবেক সচিব মনোয়ার আহমেদ। আজ শনিবার ২ জুলাই রাজধানীর বনানী কবরস্থানে তাকে দাফন করা হয়। গত বৃহস্পতিবার ৩০ জুন ভা’রতের নয়াদিল্লির একটি হাসপাতা’লে চিকিৎসাধীন অবস্থায় মা’রা যান তিনি। সেখানে তার ওপেন হার্ট সার্জারি করা হচ্ছিল।

জানা গেছে, আগামী ৮ জুলাই পবিত্র হ’জ শুরু হচ্ছে। এ উপলক্ষে শনিবার ২ জুলাই সৌদি আরবের ফ্লাইট ধ’রার কথা ছিল মনোয়ার আহমেদের। হ’জের সকল প্রস্তুতি সম্পূর্ণ করেছিলেন তিনি। হ’জে যাওয়ার জন্য ইহরামের কাপড় কিনেছিলেন। ইহরামের মোট ৫টা কাপড় কিনেছিলেন তিনি। এর মধ্যে হ’জে পরার জন্য ৩টি ও গায়ে দেওয়ার জন্য ২টি। অথচ সেই হ’জের কাপড় পরিয়েই শনিবার বনানী কবরস্থানে সাবেক সচিব মনোয়ারকে দাফন করা হয়।

এদিকে মনোয়ার আহমেদের স্ত্রী’ সরকারের সাবেক সিনিয়র সচিব শাহিন আহমেদ চৌধুরী শোকে কাতর। চাকরি জীবনেও পাশাপাশি থাকার চেষ্টা করেছেন। দুজনেই পরিকল্পনা কমিশন থেকে সচিব থাকা অবস্থায় অবসরে গেছেন। স্বামীকে হারিয়ে পাগল প্রায় শাহিন আহমেদ চৌধুরী বলেন, আজকে হ’জে যাওয়ার কথা ছিল। সৌদি না গিয়ে আজকে বনানী কবরস্থানে আসতে হলো। হ’জে ব্যবহারের জন্য ইহরামের কাপড় কিনেছিলাম। অথচ এই কাপড় পরিয়ে স্বামীকে কবর দেওয়া হলো।

পরিবারিক সূত্র জানায়, একেবারে সুস্থ ছিলেন মনোয়ার। হ’জে যাওয়ার জন্য পরিবারের চাপে হার্ট পরীক্ষা করানো হয়। এ সময় হার্টে ব্লক ধ’রা পড়ে। জরুরি ভিত্তিতে হার্টে সার্জারি করতে গিয়ে মৃ’ত্যু হয় মনোয়ার আহমেদের। মনোয়ার আহমেদের ম’রদেহ শনিবার সকালে দিল্লি থেকে ধানমন্ডির বাসায় নেওয়া হয়। বাসায় ছুটে যান প্রধানমন্ত্রীর মুখ্য সচিব (প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়) আহম’দ কায়কাউসসহ সরকারের ঊর্ধ্বতন কর্মক’র্তারা। এরপরে ধানমন্ডি বাসা থেকে মনোয়ার আহমেদের ম’রদেহ ধানমন্ডির বাইতুল আমান ম’স’জিদে জানাজার জন্য নেওয়া হয়।

এ সময় অর্থনৈতিক স’ম্প’র্ক বিভাগের সাবেক সিনিয়র সচিব কাজী শফিকুল আযম, বাস্তবায়ন পরিবীক্ষণ ও মূল্যায়ন বিভাগের (আইএমইডি) সচিব আবুল মনসুর মো. ফয়জুল্লাহ, ইআরডি অ’তিরিক্ত সচিব আবদুল বাকী, ফরিদ আজিজসহ সংশ্লিষ্টরা উপস্থিত ছিলেন। নামাজে জানাজা শেষে মনোয়ার আহমেদকে বনানী কবরস্থানে দাফন করা হয়।

 

Back to top button