জাতীয়

লাইট অফ হচ্ছিল বারবার, বিমানের ভেতরে সবার আধম’রা অবস্থা!

ভা’রতের কলকাতায় বিমান বাংলাদেশ এয়ারলাইন্সের একটি ফ্লাইট যাত্রীসহ চার ঘণ্টা আ’ট’কে ছিল। এ সময় ফ্লাইটের ভেতরে থাকা যাত্রীদের বের হতে দেওয়া হয়নি। এ অবস্থায় দুর্বিষহ সময় কা’টাতে হয়েছে যাত্রীদের। সোমবার (১৮ জুলাই) রাত ৯টা থেকে কলকাতার নেতাজি সুভাষ চন্দ্র বসু আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরে বিমান বাংলাদেশ এয়ারলাইন্সের বিজি-৩৯৬ ফ্লাইটটিতে এ ঘটনা ঘটে। শেষ পর্যন্ত সোমবার মধ্যরাত ১টা ৩৪ মিনিটে ঢাকার শাহ’জালাল বিমানবন্দরে অবতরণ করে ফ্লাইটটি।

জানা গেছে, কলকাতার নেতাজি সুভাষ চন্দ্র বসু আন্তর্জাতিক বিমানবন্দর থেকে বিমান বাংলাদেশ এয়ারলাইন্সের বিজি-৩৯৬ ফ্লাইটটি স্থানীয় সময় রাত ৮টা ৩৫ ঢাকার উদ্দেশে রওনা হওয়ার কথা ছিল। ফ্লাইট ওড়ার আগ মুহূর্তে কারিগরি ত্রুটির কথা জানিয়ে ফ্লাইটটি ছাড়তে দেরি হবে বলে জানানো হয়। ঘণ্টাখানেক পর ফ্লাইটটি রওনা হওয়ার প্রস্তুতি নেয়। রানওয়েতে গিয়ে ফ্লাইটটি আবারও কারিগরি ত্রুটির কথা বলে উড্ডয়ন বাতিল করে বোর্ডিংয়ের কাছে ফিরে আসে।

দীর্ঘ এই চার ঘণ্টা ফ্লাইটে আ’ট’কে থাকা যাত্রীরা ফেসবুকে তাদের দুঃসহ অ’ভিজ্ঞতার কথা জানিয়েছেন অনেক যাত্রী। উল্কা হোসেন নামে এক যাত্রী তার অ’ভিজ্ঞতা বর্ণনা করতে গিয়ে বলেন, কলকাতা থেকে দেশে আসার উদ্দেশে বিমান বাংলাদেশে ওঠার পাঁচ মিনিটের মা’থায় ক্যাপ্টেন বললেন যান্ত্রিক ত্রুটির জন্য বিলম্ব হবে! ওই অবস্থায় এসি কাজ করছিল না। লাইট অফ হয়ে যাচ্ছিল বারবার। গরমে আধম’রা অবস্থা আমাদের সবার।

তিনি বলেন, এভাবে আম’রা চার ঘণ্টা আ’ট’কে ছিলাম। এর মধ্যে ইঞ্জিনিয়ার তিনবার এসে ঠিকঠাক করে দেওয়ার পর ক্যাপ্টেন অ’তি দক্ষতার সঙ্গে বিমানের ১৮০ জন যাত্রী নিয়ে ঢাকা অবতরণ করলেন। আলহাম’দুলিল্লাহ্।

জাবেদ সুলতান পিয়াস নামে আরেক।যাত্রী লিখেছেন, কলকাতা থেকে ঢাকা। বিমানে। মাত্র পাঁচ ঘণ্টার রুদ্ধদ্বার যাত্রা। এসিও চালানো যাচ্ছিল না। দু-দুবার রানওয়ে থেকে ইঞ্জিনের ত্রুটির জন্য ফিরে আসে। অবশেষে ফিরলাম যাদুর শহরে। এসময় ফ্লাইটটিতে প্রায় দেড় শতাধিক যাত্রী ছিলেন। তাদের মধ্যে একজন গুরুতর অ’সুস্থ হয়ে পড়েন। পরে তাকে চিকিৎসা দেওয়া হয়।

Back to top button