জাতীয়

সরকার পরিবর্তন না হলে ইসির সঙ্গে সংলাপ নয়

সরকার পরির্তন না হলে নির্বাচন কমিশনের সাথে কোনো সংলাপে নয় বলে মন্তব্য করেছেন বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য মির্জা আব্বাস। বুধবার দুপুরে জাতীয় প্রেসক্লাবের সামনে ঢাকা মহানগর দক্ষিণ বিএনপি আয়োজিত এক সমাবেশে তিনি এ মন্তব্য করেন।

তিনি বলেন, আজ নির্বাচন কমিশনের সাথে বিএনপির সংলাপ ছিলো। আম’রা সংলাপে যাইনি, কারণ আম’রা এ নির্বাচন কমিশন মানি না। সংসদ ভে’ঙে দিয়ে নতুন এক সরকারের অধীনে নির্বাচন কমিশন হবে, সেই নির্বাচনে আম’রা যাবো, সেই কমিশনের সংলাপে আম’রা যাবো।বিএনপিকে বার বার ডাকবো- প্রধান নির্বাচন কমিশনার কাজী হাবিবুল আউয়ালের এরকম মন্তব্যের প্রসঙ্গে টেনে মির্জা আব্বাস তাকে সাদুবাদ জানান।

মির্জা আব্বাস বলেন, সিইসি বিএনপিকে বার বার ডাকবেন এই কারণে যে, বিএনপিকে ছাড়া ইসি নির্বাচন করতে পারবেন না। সিইসি তো দূরের কথা, বিএনপিকে ছাড়া দেশে কেউ নির্বাচন করতে পারবে না বলেও হুঁশিয়ারি দেন আব্বাস।

নির্বাচন কমিশনের সঙ্গে পূর্বনির্ধারিত সংলাপে আজ বুধবার অংশ নেয়নি বিএনপি। তবে প্রধান নির্বাচন কমিশনার কাজী হাবিবুল আউয়াল বলেছেন, সংলাপে না এলেও বিএনপির জন্য অ’পেক্ষা করবেন তারা।

এদিকে, বিএনপি সাফ জানিয়েছে, নির্বাচনকালীন সরকার পরিবর্তন না হলে কমিশনের সঙ্গে কোনো সংলাপ নয়।আগামী দ্বাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনের কর্মপদ্ধতি ঠিক করতে গত ১৭ জুলাই থেকে নিবন্ধিত ৩৯টি রাজনৈতিক দলের সঙ্গে সংলাপ করছে নির্বাচন কমিশন।

সংলাপের চতুর্থ দিনে বুধবার তিনটি দলের সঙ্গে ইসির সংলাপ হওয়ার কথা থাকলেও ন্যাপ তাদের সময় পরিবর্তন করেছে। বেলা ৩টায় ছিল বিএনপির সঙ্গে কমিশনের সংলাপ। তবে বিএনপি সংলাপ বর্জন করায় এদিন শুধু গণতন্ত্রী পার্টির সঙ্গে সংলাপ করে ইসি।

গণতন্ত্রী পার্টির সঙ্গে সংলাপ শেষে সিইসি বলেন, রাজনৈতিক দলগুলোর মধ্যে ঐক্য থাকতে হবে।নির্বাচন কমিশনের ডা’কা চলমান সংলাপে বিএনপি না এলেও তাদের জন্য অ’পেক্ষা করবেন বলে জানায় সিইসি।চার দিনে ১৪টি দলকে ইসি আমন্ত্রণ জানালেও সাড়া দিয়েছে ১১টি রাজনৈতিক দল। বিএনপি, বাংলাদেশ মু’সলিম লীগ এবং কল্যাণ পার্টি ইসির ডা’কা সংলাপ বর্জন করেছে।

Back to top button