জাতীয়

নিষিদ্ধ পাবজি গেম খেলে আ’ট’ক ১২০

চুয়াডাঙ্গায় নিষিদ্ধ পাবজি গেমস চ্যাম্পিয়নশিপে অংশ নিতে গিয়ে বিভিন্ন জে’লার ১২০ জন কি’শোর ও যুবককে আ’ট’ক করেছে পু’লিশ।

এর মধ্যে পাবজি গেমসের আয়োজক ১২ জন ও ১০৮ জন খেলোয়াড় রয়েছেন। দেশের বিভিন্ন জে’লা থেকে পাবজি গেমস প্রতিযোগিতায় অংশ নিতে চুয়াডাঙ্গার একটি কমিউনিটি সেন্টারে জড়ো হন তারা।

এদের মধ্যে ২৪ জনকে কারাদ’ণ্ড দিয়েছেন ভ্রাম্যমাণ আ’দা’লত। অন্যদের বয়স কম হওয়ায় তাদের পরিবারের জিম্মায় দেওয়ার কথা ভাবছে পু’লিশ।এ ধরনের একটি অ’বৈ’ধ আয়োজনে বিপুলসংখ্যক খেলোয়াড়ের উপস্থিতির ঘটনায় এলাকায় তোলপাড় সৃষ্টি হয়।

পু’লিশ ও এলাকাবাসী সূত্রে জানা গেছে, চুয়াডাঙ্গা শহরতলির দৌলাতদিয়াড় এলাকার তাসনীম নুর কমিউনিটি সেন্টারে পাবজি গেমস চ্যাম্পিয়নশিপের আয়োজন করে এলাকার ১২ জন কি’শোর ও যুবক। বুধবার সকালে তারা ওই সেন্টারে জড়ো হন। দেশের প্রায় সব জে’লা থেকে পাবজি গেম প্রতিযোগিতায় ১০৮ যুবক ও কি’শোর অংশ নেন।

খবর পেয়ে পু’লিশ তাসনীম নূর কমিউনিটি সেন্টারে বুধবার দুপুরে অ’ভিযান চালায়। পু’লিশ তাদের কাছ থেকে মোবাইল ফোন, ইলেকট্রিক ডিভাইস, নগদ টাকা, খেলার পুরস্কার, রাইটারসহ বিভিন্ন উপকরণ জ’ব্দ করে।

দুপুরে আ’ট’ককৃতদের মধ্যে যাদের বয়স ১৮ বছরের বেশি তাদের ২৪ জনকে সদর উপজে’লা নির্বাহী কর্মক’র্তা শামিম ভূইয়ার ভ্রাম্যমাণ আ’দা’লতে হাজির করা হয়। বিচারক প্রত্যেককে দুদিনের বিনাশ্রম কারাদ’ণ্ড দেন। বিকালে তাদের জে’লা কারাগারে নেওয়া হয়। বাকি ৯৬ জনের মধ্যে যাদের বয়স ১৮ বছরের নিচে তাদের অ’ভিভাবকের জিম্মায় ছেড়ে দেওয়া হবে বলে পু’লিশ জানায়।

নিষিদ্ধ পাবজি গেমস প্রতিযোগিতায় বিভিন্ন জে’লার ১৯টি দল অংশগ্রহণ করে। প্রত্যেকটি দলে অংশগ্রহণ করে ৪ জন করে।পু’লিশ জানায়, পাবজি গেমসের প্রধান আয়োজক ছিলেন চুয়াডাঙ্গা পৌর এলাকার তালতলা পাড়ার মুহাই আলীর ছে’লে মেহরাব ও চুয়াডাঙ্গা পোস্ট অফিসপাড়ার সাহিন মাহমুদের ছে’লে সাদমান সারার।

চুয়াডাঙ্গা সদর থা’নার ওসি মাহব্বুর রহমান যুগান্তরকে বলেন, দেশের প্রায় সব জে’লা থেকে এসব কি’শোর ও যুবক নিষিদ্ধ পাবজি গেম প্রতিযোগিতায় অংশ নিতে চুয়াডাঙ্গায় এসেছিল।

Back to top button