আন্তর্জাতিক

গো’প’নে ম’ক্কা সফরে ই’স’রাইলি-ইহুদি সাংবাদিক, নিন্দার ঝড়

অমু’সলিম’দের জন্য নিষিদ্ধ পবিত্র শহর ম’ক্কায় গো’প’নে সফর করেছেন গিল তামা’রি নামে এক ইহুদি সাংবাদিক। তিনি ই’স’রাইলি গণমাধ্যম চ্যানেল থার্টিনে কর্ম’রত। গো’প’নে ম’ক্কা সফরের সময় আরাফাতের জাবালে রহমত পর্বতসহ বিভিন্ন ধ’র্মীয় স্থানের ভিডিও ধারণ করেন তিনি। কাতারভিত্তিক সংবাদমাধ্যম আল জাজিরা ও ই’স’রাইলি সংবাদমাধ্যম জেরুজালেম পোস্ট বুধবার এক প্রতিবেদনে এ খবর জানিয়েছে।

সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে এসব ভিডিও এবং ছবি শেয়ারের পর উঠেছে নিন্দার ঝড়।জেরুজালেম পোস্টের প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, গত সপ্তাহে মা’র্কিন প্রেসিডেন্ট জো বাইডেনের আঞ্চলিক সম্মেলনের কভা’র করার জন্য অন্য দুই ই’স’রাইলি সাংবাদিকের সঙ্গে সৌদি আরবে প্রবেশের একটি বিশেষ অনুমতি পেয়েছিলেন গিল তামা’রি।

অমু’সলিম’দের ম’ক্কা নগরীতে প্রবেশ সম্পূর্ণরূপে নিষিদ্ধ। ম’দি’না শহরেও কোনো কোনো অংশে অমু’সলিম’দের প্রবেশ নিষিদ্ধ। যদিও সাম্প্রতিক বছরগুলোতে ম’দি’নায় প্রবেশের উপর নিষেধাজ্ঞা কিছুটা শিথিল করা হয়েছে বলে জানা গেছে।

সোমবার চ্যানেল থার্টিনে প্রকাশিত প্রতিবেদনে তামা’রি উল্লেখ করেছেন, অমু’সলিম’দের ম’ক্কায় প্রবেশের অনুমতি নেই। তবে তিনি কীভাবে শহরে প্রবেশ করতে পেরেছেন এবং একজন মু’সলিম চালকের সঙ্গে আরাফাত পর্বতে যেতে পেরেছেন তা বিশদভাবে বর্ণনা করেছেন।

অবশ্য তামা’রি জো’র দিয়ে বলেছেন যে, ওই গাড়ি চালক জানতেন না যে তিনি একজন ই’স’রাইলি সাংবাদিক। কারণ ওই গাড়ি চালকের সঙ্গে তিনি শুধু ইংরেজিতে কথা বলেছিলেন।

ক্যামেরায় তামা’রি নিচু গলায় হিব্রুতে কথা বলছিলেন এবং নিজের ই’স’রাইলি পরিচয় গো’প’ন করতে কখনো কখনো ইংরেজিতেও কথা বলছিলেন।তামা’রির ওই প্রতিবেদন স্কুপ নিউজ হিসেবে প্রচার করা হয়। বলা হয়, তামা’রিই প্রথম ইহুদি-ই’স’রাইলি সাংবাদিক, যিনি হ’জের সময় প্রতিবেদন করেছেন।

প্রতিবেদনটি একটি স্কুপ হিসাবে বিল করা হয়েছিল এবং সাংবাদিক প্রথম ইহুদি ই’স’রায়েলি প্রতিবেদক যিনি বার্ষিক মু’সলিম তীর্থযাত্রার নথিভুক্ত করেছিলেন।প্রতিবেদনটি প্রচারিত হওয়ার পর টুইটারে ‘ম’ক্কার গ্র্যান্ড ম’স’জিদে ইহুদি’ হ্যাশট্যাগ ট্রেন্ডিংসহ টুইটারে এর ব্যাপক সমালোচনা করা হয়।

সমালোচকদের মধ্যে ছিলেন ই’স’রাইলপন্থী সৌদি আ’ন্দোলন কর্মী মোহাম্ম’দ সৌদ। তিনি বলেন, ই’স’রাইলে আমা’র প্রিয় বন্ধুরা, আপনাদের একজন সাংবাদিক ই’স’লা’মের পবিত্র ম’ক্কা শহরে প্রবেশ করেছেন এবং সেখানে নির্লজ্জভাবে ছবি তুলেছেন। ই’স’লা’ম ধ’র্মকে এভাবে আ’ঘাত করার জন্য চ্যানেল থার্টিনের জন্য লজ্জা।

এদিকে, ই’স’রাইলের আঞ্চলিক সহযোগিতা মন্ত্রী এসাউই ফ্রেইজ, যিনি একজন মু’সলিম, তামা’রির প্রতিবেদনকে ই’স’রাইল-উপসাগরীয় স’ম্প’র্কের জন্য ‘মূর্খ এবং ক্ষতিকারক’ বলে নিন্দা করে বলেন, শুধু রেটিং এর জন্য এই প্রতিবেদনটি প্রচার করা দায়িত্বজ্ঞানহীন এবং ক্ষতিকর।

অবশ্য তামা’রি এসব প্রতিক্রিয়ার পর ক্ষমা চেয়ে বলেন, তিনি মু’সলমানদের ক্ষুব্ধ করার উদ্দেশ্য কিছু করেননি।টুইটারে তিনি ইংরেজিতে লিখেছেন, যদি কেউ এই ভিডিওতে আ’ঘাত পেয়ে থাকেন, আমি গভীরভাবে ক্ষমাপ্রার্থী।

Back to top button