জাতীয়

আগস্টের প্রথম সপ্তাহে ঢাকা আসতে পারেন চীনা পররাষ্ট্রমন্ত্রী

চীনের পররাষ্ট্রমন্ত্রী ওয়াং ই দু’দিনের সফরে আগামী মাসের প্রথম সপ্তাহে ঢাকায় আসতে পারেন। ঢাকায় চীনের রাষ্ট্রদূত লি জিমিং গত রবিবার পররাষ্ট্রমন্ত্রী এ কে আব্দুল মোমেনের সঙ্গে সাক্ষাৎ করে ওই সফরের প্রস্তাব দিয়েছেন।

চীনা প্রস্তাব অনুযায়ী, আগামী ৫ ও ৬ আগস্ট ঢাকা সফর করতে চান চীনা পররাষ্ট্রমন্ত্রী। তবে বাংলাদেশ ওই সফরকে পিছিয়ে ৭ আগস্ট করার প্রস্তাব দিয়েছে।

কারণ পররাষ্ট্রমন্ত্রী ৪ থেকে ৬ আগস্ট কম্বোডিয়া সফর করবেন। সেই সফর থেকে পররাষ্ট্রমন্ত্রীর আগামী ৭ আগস্ট ঢাকায় ফেরার কথা রয়েছে। চীনা পররাষ্ট্রমন্ত্র্রী ঢাকায় তার সম্ভাব্য সফর কিছুটা পেছালে পররাষ্ট্রমন্ত্রী মোমেন তাঁর কম্বোডিয়া সফর কিছুটা সংক্ষিপ্ত করে আগেই ঢাকা ফিরতে পারেন।
চীনের পররাষ্ট্রমন্ত্রী এমন এক সময় বাংলাদেশ সফরের আগ্রহ প্রকাশ করেছেন যখন ইন্দো-প্যাসিফিকসহ বিভিন্ন ইস্যুতে যু’ক্তরাষ্ট্র বাংলাদেশকে কাছে টানছে। অন্যদিকে চীন যু’ক্তরাষ্ট্রের ইন্দো-প্যাসিফিক কৌশলকে ‘চীনবিরোধী’ উদ্যোগ বলে মনে করে। এছাড়া কোয়াড সম্প্রসারণ হলে এবং বাংলাদেশ তাতে যোগ দিলে এ দেশের সঙ্গে চীনের স’ম্প’র্কে ক্ষতি হবে বলে বেইজিং আগেই ঘোষণা দিয়েছে। আগামী সেপ্টেম্বর মাসে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার ভা’রত, যু’ক্তরাজ্য ও যু’ক্তরাষ্ট্র সফরের কথা রয়েছে।

কূটনৈতিক সূত্রগুলো জানায়, চীনের পররাষ্ট্রমন্ত্রী এ সপ্তাহেই এশিয়ার কয়েকটি দেশ সফরে বের হচ্ছেন। তিনি আগামী ২৮ ও ২৯ জুলাই উজবেকিস্তানের তাসখন্দে সাংহাই কো অ’পারেশন অর্গানাইজেশনের পররাষ্ট্রমন্ত্রী পর্যায়ের বৈঠকে অংশ নেবেন। সেখানে ভা’রত ও পা’কিস্তানের পররাষ্ট্রমন্ত্রিরাও উপস্থিত থাকতে পারেন।

চীনের পররাষ্ট্রমন্ত্রী উজবেকিস্তান থেকে আরো দু’একটি দেশ ঘুরে ঢাকায় আসতে চান।

রোহিঙ্গা প্রত্যাবাসনের ব্যাপারে বাংলাদেশ চীনের জো’রালো ভূমিকা প্রত্যাশা করছে। এ বছরই প্রত্যাবাসন শুরুর ব্যাপারে চেষ্টা চলছে। এছাড়া বাংলাদেশে আ’ট’কেপড়া চীনের বিভিন্ন বিশ্ববিদ্যালয়ে অধ্যয়নরত বাংলাদেশি শিক্ষার্থীদের ফেরার বিষয়েও শিগগিরই আনুষ্ঠানিক ঘোষণা আসতে পারে। সংশ্লিষ্ট সূত্রগুলো জানায়, আগামী সেপ্টেম্বর মাসেই বাংলাদেশি শিক্ষার্থীদের চীনে ফেরা শুরু হতে পারে।

Back to top button