জাতীয়

শেখ হাসিনাকে হ’ত্যাচেষ্টা : দ’ণ্ডপ্রাপ্ত ৪ আ’সা’মিকে জামিন দেয়নি হা’ই’কো’র্ট

শেখ হাসিনার গাড়িবহরে হা’ম’লার মা’ম’লায় সাজা’প্রাপ্ত সাতক্ষীরা জে’লা আইনজীবী সমিতির সাবেক সাধারণ সম্পাদক অ্যাডভোকেট আব্দুস সাত্তারসহ চার আ’সা’মিকে জামিন দেয়নি হা’ই’কো’র্ট বিভাগ।

বিচারপতি এ এস এম আব্দুল মোবিন ও বিচারপতি মোঃ আতোয়ার রহমান সমন্বয়ে গঠিত একটি হা’ই’কো’র্ট ডিভিশন বেঞ্চ আজ মঙ্গলবার এ আদেশ দেন। তবে তাদের আপিল শুনানির জন্য গ্রহণ করেছে আ’দা’লত।আ’দা’লতে রাষ্ট্রপক্ষে ছিলেন ডেপুটি অ্যাটর্নি জেনারেল সুজিত চ্যাটার্জি বাপ্পী। আ’সা’মিদের পক্ষে ছিলেন ব্যারিস্টার কায়সার কা’মাল।

সাবেক বিরোধীদলীয় নেতা আওয়ামী লীগের সভাপতি বর্তমান প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার গাড়িবহরে হা’ম’লার মা’ম’লায় চার বছরের সাজা’প্রাপ্ত সাতক্ষীরার অ্যাডভোকেট আব্দুস সাত্তারসহ চার আ’সা’মি হা’ই’কো’র্টে জামিন চেয়ে আবেদন করেন। অন্য তিন আ’সা’মি হলেন মোঃ ইয়াছিন আলী, তোফাজ্জল হোসেন ও মাহফুজুর রহমান। তারা চার বছরের সাজা’প্রাপ্ত।

শেখ হাসিনার গাড়িবহরে হা’ম’লা মা’ম’লায় গত বছরের ৪ ফেব্রুয়ারি বিএনপির সাবেক এমপি হাবিবুল ই’স’লা’ম হাবিবসহ তিনজনের ১০ বছর করে এবং বাকি ৪৭ আ’সা’মিকে বিভিন্ন মেয়াদে কারাদ’ণ্ড দেয় সাতক্ষীরার একটি আ’দা’লত।

মা’ম’লার বিবরণে বলা হয়, ২০০২ সালে কলারোয়ার এক মুক্তিযোদ্ধার স্ত্রী’কেধ,, র্ষ, ণ করা হয়। ২০০২ সালের ৩০ আগস্ট জাতীয় সংসদের তৎকালীন বিরোধীদলীয় নেতা শেখ হাসিনা সাতক্ষীরা সদর হাসপাতা’লে ওই মুক্তিযোদ্ধার স্ত্রী’কে দেখে মাগুরায় যাচ্ছিলেন। কলারোয়া উপজে’লা বিএনপি অফিসের সামনে তার গাড়িবহর পৌঁছালে একদল স’ন্ত্রা’সী লা’ঠিসোটা, ধারালো অ’স্ত্র, বো’মা ও আগ্নেয়াস্ত্র নিয়ে হা’ম’লা চালায়। তারা গু’লিবর্ষণ করে এবং বো’মা বি’স্ফোরণ ঘটায়। এসময় শেখ হাসিনা প্রা’ণে বেঁচে যান। তবে গাড়িবহরে থাকা সাতক্ষীরা জে’লা আওয়ামী লীগের আহ্বায়ক ইঞ্জিনিয়ার শেখ মুজিবর রহমান, কেন্দ্রীয় আওয়ামী লীগ নেত্রী ফাতেমা জাহান সাথী, জোবায়দুল হক রাসেল, শেখ হাসিনার ক্যামেরাম্যান শহীদুল হক জীবনসহ অনেকেই আ’হত হন। বেশ কয়েকজন সাংবাদিকও এ ঘটনায় আ’হত হন।

কলারোয়া মুক্তিযোদ্ধা কমান্ডার শেখ মোসলেম উদ্দিন এ ঘটনায় কলারোয়া থা’নায় ২৭ জনের নাম উল্লেখ করে একটি মা’ম’লা করেন। থা’না মা’ম’লা’টি রেকর্ড না করায় একই বছরের ২ সেপ্টেম্বর তিনি সাতক্ষীরার আমলি আ’দা’লতে মা’ম’লা’টি করেন। এ মা’ম’লা খারিজ হয়ে যাওয়ার পর হা’ই’কো’র্টের নির্দেশে ২০১৪ সালের ১৫ অক্টোবর মা’ম’লা’টি পুনরুজ্জীবিত করা হয়। এসময় ত’দ’ন্ত করে পু’লিশ তৎকালীন বিএনপি দলীয় সংসদ সদস্য হাবিবুল ই’স’লা’ম হাবিবসহ ৫০ জনের বি’রু’দ্ধে আ’দা’লতে চার্জশিট দেয়।

মা’ম’লা’টির সাক্ষ্যগ্রহণ শুরুর পর ২০১৭ সালের ২১ সেপ্টেম্বর উচ্চ আ’দা’লতে মা’ম’লা বাতিলের আবেদন করেন আ’সা’মিরা। এরপর ২০২০ সালের ২২ অক্টোবর মা’ম’লা’টির স্থগিতাদেশ প্রত্যাহার করে ৯০ দিনের মধ্যে বিচার কাজ শেষ করার জন্য সাতক্ষীরা চিফ জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রিট আ’দা’লতকে নির্দেশ দেয় হা’ই’কো’র্ট বিভাগ।

হা’ই’কো’র্টের নির্দেশনা অনুযায়ী, ২০২০ সালের ৪ নভেম্বর মা’ম’লা’টির বিচার কাজ নতুন করে শুরু হয়। এ মা’ম’লায় সাক্ষ্যগ্রহণ ও যু’ক্তিতর্ক শেষে ৫০ জনের বি’রু’দ্ধে আনা অ’ভিযোগ প্রমাণ হওয়ায় তাদের বিভিন্ন মেয়াদে কারাদ’ণ্ড দেয় আ’দা’লত।

Back to top button