জাতীয়

‘বিষক্রিয়ায় সিলেটের সেই বাবা-ছে’লের মৃ’ত্যু’

ওসমানীনগর উপজে’লার একটি বাড়ি থেকে অচেতন অবস্থায় উ’দ্ধা’র করা যু’ক্তরাজ্য প্রবাসী পরিবারের পাঁচ সদস্য বিষক্রিয়ায় আ’ক্রা’ন্ত হয়েছিলেন বলে জানিয়েছেন সিলেটের পু’লিশ সুপার (পদোন্নতিপ্রাপ্ত ডিআইজি) মো. ফরিদ উদ্দিন।

মঙ্গলবার (২৬ জুলাই) ঘটনাস্থল পরিদর্শন শেষে তিনি সাংবাদিকদের এ কথা বলেন।তিনি বলেন, বিষক্রিয়ার কারণে ঘটনাটি ঘটেছে বলে চিকিৎসকরা জানিয়েছেন। তবে কীভাবে বিষক্রিয়া ঘটেছে, তা ত’দ’ন্তের আগে বলা যাচ্ছে না। যেসব নিকটাত্মীয় বাসায় ছিলেন, তাদের জিজ্ঞাসাবাদ করা হয়েছে। এ ঘটনার র’হ’স্য উদঘাটনের জন্য পু’লিশ ত’দ’ন্ত অব্যাহত রেখেছে। বিষক্রিয়ায় আ’ক্রা’ন্তদের মধ্যে যু’ক্তরাজ্য প্রবাসী রফিকুল ই’স’লা’ম (৫০) ও তার ছে’লে মাহিকুল ই’স’লা’ম (১৮) মা’রা গেছেন। মূলত ওই বাসায় তারা উঠেছিলেন ছোট ছে’লের চিকিৎসার জন্য।

তিনি আরও বলেন, সোমবার (২৫ জুলাই) রাতে তারা খাবার খেয়ে ঘুমিয়ে পড়েন। সকাল সাড়ে ১০টার দিকে স্বজনরা ডা’কাডাকি করলেও তাদের কোনো সাড়া শব্দ পায় না। খবর পেয়ে পু’লিশ এসে দরজা ভে’ঙে তাদের অচেতন অবস্থায় উ’দ্ধা’র করে হাসপাতা’লে পাঠালে দুইজন মা’রা যান।

এদিকে সিলেট এমএজি ওসমানী মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতা’লের পরিচালক ব্রিগেডিয়ার জেনারেল ডা. মাহবুবুর রহমান ভূঁইয়া সাংবাদিকদের বলেন, মা’রা যাওয়া দুইজনের ম’রদেহ হাসপাতাল ম’র্গে রয়েছে। আর অ’সুস্থ তিনজনের অবস্থা গুরুতর। তাদের বাঁ’চাতে যথাসাধ্য চেষ্টা চলছে।

খাবারের বিষক্রিয়ায় এমনটি ঘটতে পারে জানিয়ে তিনি বলেন, অ’সুস্থ ৩ জনের সুচিকিৎসার জন্য বিশেষজ্ঞ চিকিৎসকদের সমন্বয়ে একটি মেডিক্যাল বোর্ড গঠন করা হয়েছে।স্থানীয়রা জানান, যু’ক্তরাজ্য থেকে ১২ জুলাই তারা দেশে আসেন। ১৮ জুলাই ওসমানীনগরের তাজপুরে ওই ফ্ল্যাট ভাড়া নেন। ছে’লের চিকিৎসার সুবিধার্থে বাসাটি ভাড়া নিয়ে তারা এখানে উঠেছিলেন।

স্বজনদের বরাত দিয়ে পু’লিশ জানায়, সোমবার (২৫ জুলাই) রাতের খাবার শেষে প্রবাসী রফিকুল তার স্ত্রী’ সন্তানসহ একটি কক্ষে এবং তার শ্বশুর আনফর আলী, শাশুড়ি বদরুন্নেছা, শ্যালক দেলোয়ার হোসেন, শ্যালকের স্ত্রী’ শোভা বেগম ও মে’য়ে সাবিলা বেগম (৮) অন্যান্য কক্ষে ঘুমিয়ে পড়েন। মঙ্গলবার সকালে বাসার সুস্থ স্বজনরা ডা’কাডাকি করে প্রবাসী রফিকুলসহ তার স্ত্রী’-সন্তানরা ঘরের দরজা না খোলায় ৯৯৯ নম্বরে কল করেন।

মঙ্গলবার দুপুর ১টার দিকে পু’লিশ এসে বাসার দরজা ভে’ঙে তাদের অচেতন অবস্থায় তাদের উ’দ্ধা’র করে। হাসপাতা’লে নেওয়ার পর রফিকুল ও তার ছোট ছে’লে মাহিকুল মা’রা যান। আশ’ঙ্কাজনক অবস্থায় চিকিৎসাধীন রফিকুলের স্ত্রী’ হোসনেআরা বেগম (৪৫), ছে’লে সাদিকুল ই’স’লা’ম (২৫) ও সামিয়া ই’স’লা’ম (২০)।

এ ঘটনাটি সিলেটজুড়ে চাঞ্চল্যের সৃষ্টি করেছে। খবর পেয়ে পু’লিশের ঊর্ধ্বতন কর্মক’র্তারা ঘটনাস্থলে ছুটে যান।আজ দুপুরে ওসমানীনগর উপজে’লার গোয়ালাবাজার হুলিয়ারবন্দ এলাকায় তাজপুর ইউপি চেয়ারম্যান ঝলক পালের মালিকানা ভবনের দোতলার একটি ফ্ল্যাট থেকে যু’ক্তরাজ্য ফেরত রফিকুলসহ তার পরিবারের ৫ সদস্যকে অচেতন অবস্থায় উ’দ্ধা’র করা হয়। তাদের হাসপাতা’লে নেওয়া হলে বাবা-ছে’লের মৃ’ত্যু হয়।

Back to top button