জাতীয়

ইভিএম হ্যাকিং কোনোভাবেই সম্ভব না

ইভিএমে কারচুপি হয় এমন কোনো অ’ভিযোগ পাননি বলে জানিয়েছেন প্রধান নির্বাচন কমিশনার (সিইসি) কাজী হাবিবুল আউয়াল। তিনি বলেছেন, বাইরে অনেক কথাই চাউর আছে। বলা হচ্ছে-এটা হ্যাকিং হতে পারে বা ভোট চু’রি হতে পারে। কিন্তু আম’রা এ পর্যন্ত সুস্পষ্ট কোনো প্রমাণ পাইনি।

আজ বুধবার রাজধানীর আগারগাঁওয়ে নির্বাচন ভবনে সংলাপের নবম দিনে জাকের পার্টির সঙ্গে সংলাপে তিনি এ কথা বলেন।

সিইসি বলেন, ইভিএম নিয়ে কোনো সিদ্ধান্ত নিইনি। ইভিএমের হ্যাকিংটা কোনোভাবেই সম্ভব না। কারণ এটার সঙ্গে ইন্টারনেট সংযোগ নেই। এটা নিয়ে বহু পরীক্ষা-নিরীক্ষা হয়েছে। নিরবচ্ছিন্নভাবে আম’রা পরীক্ষা-নিরীক্ষা করে যাচ্ছি।

তিনি এ সময় আরো বলেব, আম’রা অবাধ ও শান্তিপূর্ণ নির্বাচন চাই। এটা অর্জন করতে হলে সবাইকে কঠোর পরিশ্রম করতে হবে। এ জন্য সব দলের সক্রিয় সহায়তা চাই।

তিনি বলেন, নির্বাচনের মাঠকে নিয়ন্ত্রণ করতে হলে সব পার্টিকে থাকতে হবে। সবাই থাকলে নির্বাচনের মাঠে ভা’রসাম্য সৃষ্টি হয়। আম’রা অবাধ, সুষ্ঠু নির্বাচন চাই। সেই চাওয়াটা পূরণ করতে হলে সকলকে কঠোর পরিশ্রম করতে হবে।

আউয়াল বলেন, কমিশন আইন, বিধির আলোকে পরিচালিত হবে। আম’রা এর বাইরে যেতে পারব না। আমাদের সকলের আন্তরিক সহযোগিতা, প্রয়াস থাকলে আমা’র সংসদ নির্বাচনের কঠিন কাজ সফলভাবে সম্পন্ন করতে পারব।

সংলাপে জাকের পার্টির ভা’রপ্রাপ্ত মহাসচিব শামীম হায়দারের নেতৃত্বে ৯ সদস্যের প্রতিনিধি দল, প্রধান নির্বাচন কমিশনার ছাড়াও চার নির্বাচন নির্বাচন কমিশনার ও ইসির ঊর্ধ্বতন কর্মক’র্তারা অংশ নেন। কৃষক শ্রমিক জনতা লীগের সভাপতি বঙ্গবীর কাদের সিদ্দিকীর নেতৃত্বে মোট ১৫ আসার কথা রয়েছে।

Back to top button