খেলাধুলা

সংযু’ক্ত আরব আমিরাতেই হবে এশিয়া কাপ

আভাস মিলছিল কদিন ধরেই। সেই আভাসই শেষ পর্যন্ত পেল আনুষ্ঠানিক রূপ। শ্রীলঙ্কার কাছে স্বাগতিক স্বত্ত্ব থাকলেও আবারও এশিয়া কাপের আসর বসতে যাচ্ছে সংযু’ক্ত আরব আমিরাতে।

এশিয়ান ক্রিকেট কাউন্সিল (এসিসি) আজ এক সংবাদ বি’জ্ঞ’প্তিতে জানিয়েছে, আগামী ২৭ অগাস্ট থেকে ১১ সেপ্টেম্বর পর্যন্ত ছয় দলের এশিয়া কাপ হবে আমিরাতে।

সর্বশেষ খবর দ্য ডেইলি স্টার বাংলার গুগল নিউজ চ্যানেলে।
শ্রীলঙ্কার চলমান অর্থনৈতিক সংকটের কারণেই শেষ মুহুর্তে ভেন্যু বদলাতে হয়েছে। সেজন্য লঙ্কান দর্শকদের কাছে দুঃখপ্রকাশও করেছে সংস্থাটি।

এসিসি সভাপতি জয় শাহ জানান, শ্রীলঙ্কায় টুর্নামেন্টটি আয়োজন করতে তারা সব রকম চেষ্টাই চালিয়েছিলেন, ‘শ্রীলঙ্কায় এশিয়া কাপ আয়োজন করতে সব রকমের চেষ্টা করা হয়েছে। কিন্তু শেষ পর্যন্ত তা বদলে আমিরাতে নিতে হলো। আমিরাতে খেলা হলেও স্বাগতিক থাকবে শ্রীলঙ্কাই। এশিয়ার দেশগুলোর বিশ্বকাপ প্রস্তুতির জন্য এই এশিয়া কাপ খুবই গুরুত্বপূর্ণ। আমি শ্রীলঙ্কান ক্রিকেট বোর্ড ও আমিরাত ক্রিকেট বোর্ডকে সহযোগিতা করার জন্য ধন্যবাদ জানাই।’

শ্রীলঙ্কান ক্রিকেট বোর্ডের সভাপতি শাম্মি সিলভাও সিদ্ধান্তটি মেনে নিয়েছেন, ‘শ্রীলঙ্কায় আমাদের প্রতিবেশি দেশগুলোকে আমন্ত্রণ জানানোর অ’পেক্ষায় ছিলাম। কিন্তু এসিসির সিদ্ধান্ত আমি সম’র্থন করছি। শ্রীলঙ্কান ক্রিকেট বোর্ড এসিসি ও আমিরাত ক্রিকেট বোর্ডের সঙ্গে মিলে আয়োজনটি সম্পন্ন করবে।’

এশিয়ার পাঁচটি টেস্ট খেলুড়ে দেশ বাংলাদেশ, ভা’রত, শ্রীলঙ্কা, পা’কিস্তান ও আ’ফ’গা’নিস্তান সরাসরি অংশ নেবে এশিয়া কাপে। বাকি একটি দল যু’ক্ত হবে বাছাই পর্ব পেরিয়ে। মূল আসরের আগে সংযু’ক্ত আরব আমিরাত, নেপাল, হংকংকে নিয়ে আমিরাতেই হবে বাছাইপর্ব।

২০১৮ সালএ এশিয়া কাপের সর্বশেষ আসরটিও হয়েছিল দুবাই ও আবুধাবিতে। সেবার ওয়ানডে সংস্করণের খেলায় ফাইনালে বাংলাদেশকে হারিয়ে চ্যাম্পিয়ন হয় ভা’রত।

সামনে আইসিসির যে সংস্করণের বৈশ্বিক ইভেন্ট আছে, সেই সংস্করণেই খেলা হয় এশিয়া কাপে। ২০১৯ ওয়ানডে বিশ্বকাপের আগে তাই ২০১৮ সালে হয়েছিল ওয়ানডে আসর। এবার অক্টোবরে অস্ট্রেলিয়ায় আছে টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপ। তার আগে এশিয়া কাপ হতে যাচ্ছে টি-টোয়েন্টি সংস্করণে।

 

 

 

Back to top button