আন্তর্জাতিক

প্রে’মের টানে মিশরের নুরহান বাংলাদেশে

প্রে’মের টানে বাংলাদেশে দিনাজপুরের বীরগঞ্জের শমসের আলীর বাড়িতে এসে ঘর-সংসার করছেন মিশরের নুরহান (২০)। শমসের আলী বীরগঞ্জ উপজে’লার শতগ্রাম ইউনিয়নের অর্জনুহার গ্রামের কৃষক বাদশা মিয়ার ছে’লে।

জানা যায়, জীবিকার সন্ধানে ২০০৮ সালে মিশরে পাড়ি জমান শমসের আলী। মিশরের কায়রোতে গড়ে তুলেন তার নিজস্ব গার্মেন্টস ব্যবসার প্রতিষ্ঠান। ২০১৮ সালে পরিচয় হয় মিশরের তরুণী নুরহানের সঙ্গে। প্রথমে বন্ধুত্ব, পরে প্রে’ম। প্রে’ম থেকে দুই মাসের মা’থায় পরিবারের সম্মতিতে তাদের বিয়ে। বর্তমান তাদের সংসারে ৩ বছরের মে’য়ে (রুকাইয়া) ও ১১ মাসের (ইয়াসিন) একটি ছে’লে রয়েছে।

দীর্ঘ ১৫ বছর পর গত ১০ জুলাই শমসের আলী ফিরে আসেন বাংলাদেশে। সঙ্গে নিয়ে আসেন স্ত্রী’ নুরহান ও তাদের দুই ছে’লে-মে’য়েকে। দেশ ভাষা সংস্কৃতি ভিন্ন এবং আলাদা আবহাওয়া- সব কিছুতে নিজেকে খাপ খাইয়ে নিয়েছেন মিশর থেকে আসা এই গৃহবধূ। তাদের আসার খবরে এক নজর দেখার জন্য ভিড় করছে আশপাশে গ্রামের লোকজন।

এদিকে কয়েকজন গ্রামবাসী জানালেন, শমসের ভাই বিদেশি বউ নিয়ে এসেছেন। আম’রা তাকে দেখার জন্য আসছি। বউটি দেখতে অনেক সুন্দর। ব্যবহার, আচার-আচরণও খুবই ভালো। তবে আমাদের ভাষা সে বোঝে না এবং আম’রাও তার ভাষা বুঝিনা।

শমসের আলী বলেন, ১৫ বছর পর স্ত্রী’ সন্তান নিয়ে দেশে আসছি। ৪ বছর আগে নুরহানকে বিয়ে করেছি। সংসার জীবনে অনেক ভালো আছি। সে আমা’র পরিবারের সাথে মিশে গেছে। তার নিজ দেশে ফিরে যাওয়ার ইচ্ছে নেই। তবে যেতে হবে কেননা সেখানে আম’রা নিজস্ব ব্যবসা আছে। নুরহান বলেন, বাংলাদেশকে অনেক ভাল লেগেছে। এখানকার মাটি মানুষ, গাছ-পালা, সবুজ মাঠ আর খোলা আকাশ খুবই সুন্দর। আমি এখানে রয়েই যাবো।

 

Back to top button